অস্ত্র নিয়ে হুলি খেলা করলে তার দাঁতভাঙ্গা জবাব দেওয়া হবে—-জিএম সোহাগ

॥ মোহাম্মদ আবু তৈয়ব, খাগড়াছড়ি ॥ খাগড়াছড়ির ভাইবোনছড়ায় সেনা সদর জোন আয়োজিত হেডম্যান ও কার্বারী বিশাল সম্মেলন’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবাল (১০ এপ্রিল) সকাল ১০ টায় খাগড়াছড়ি জেলাধীন ৫নং ভাইবোনছড়া ইউনিয়নের সেনা সদর জোন আয়োজিত হেডম্যান ও কার্বারী বিশাল সম্মেলনে উপজাতীয় আঞ্চলিক রাজনৈতিক দলসমূহের দু®কৃতিকারীদের দ্বারা সশস্ত্র কর্মকান্ড, চাঁদাবাজি এবং অন্যান্য আইন শৃঙ্খলা ও শান্তি বিনষ্টকারী কর্মকান্ডের বিষয়ে খাগড়াছড়ি রিজিয়নের কঠোর অবস্থানের ধারাবাহিকতায় এবং সামরিক  ও বেসামরিক প্রশাসনের সমন্বিত পদক্ষেপ নেওয়ার ফলে সম্প্রতি অত্র জোনের আওতাধীন এলাকায় শান্তি শৃঙ্খলা পরিস্থিতির প্রভূত উন্নতি সাধিত হয়েছে। শান্তি, সম্প্রীতি ও উন্নয়নের এই ধারাবাহিকতাকে বেগবান করার লক্ষ্যে হেডম্যানদের নিয়ে এই মতবিনিময় সমাবেশের ডাক দেয়া হয়।
উক্ত সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসাবে খাগড়াছড়ি সদর জোনোর অধিনায়ক লে: কর্ণেল জি এম সোহাগ বলেছেন, পার্বত্য অঞ্চলে সন্ত্রাসী যেই হোক, কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। অস্ত্র নিয়ে হুলি খেলা করলে তার দাঁতভাঙ্গা জবাব দেওয়া হবে। শান্তি সম্প্রীতি ও উন্নয়ন কর্মকান্ডের ধারাবাহিকতায় খাগড়াছড়ি জোন কর্তৃক প্রতিমাসে বিভিন্ন ক্যাম্পের হেডম্যান ও কার্বারী সম্মেলন করা হচ্ছে, যা নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে স্থানীয় জনগণের সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্য বৃদ্ধির গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনের লক্ষ্যে একই সাথে এর মাধ্যমে দায়িত্বরত এলাকার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠি এবং বাঙ্গালীদের মধ্যে সম্পর্কের উন্নতি ঘটছে যা চলমান শান্তি প্রক্রিয়াকে আরো ত্বরান্বিত করবে বলে তিনি সমাবেশে বলেছেন।
উক্ত সমাবেশে তিনি আরো বলেন, হেডম্যান বা কার্বারীদের মাধ্যমে উত্থাপিত পয়েন্ট বা তাদের এলাকার সমস্যা সমূহ দুর করার ক্ষেত্রে জোন বা রিজিয়ন কর্তৃক ভূমিকা পালন করা হবে এই ধরনের সম্মেলন আরও অর্থবহ এবং বিশ্বাসযোগ্য হবে যা শান্তি প্রক্রিয়াকে আরও বেগমান করবে বলে মনে করেন তিনি। তাছাড়া এই বিষয়ে তিনি ইতিমধ্যে জোন কর্তৃক অসামরিক প্রশাসনে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ/সমন্বয় করা হচ্ছে উক্ত সম্মেলনে বলেছেন।
উক্ত হেডম্যান ও কার্বারী সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসাবে খাগড়াছড়ি সদর জোনোর অধিনায়ক লে: কর্ণেল জি এম সোহাগ-পিএসসি; ভারপাপ্ত অধিনায়ক মেজর মো: রফিকুল ইসলাম ও ক্যাম্পেন সাইফ যোবায়েদসহ রেজামনি পাড়া ও ভাইবোনছড়া সেনা ক্যাম্পের কমান্ডারগণ, প্রায় ৬৫ জন হেডম্যান কার্বারী এবং খাগড়াছড়িতে কর্মরত বিভিন্ন পত্র-পত্রিকার সংবাদিকগণরা উপস্থিত ছিলেন।

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ২৬ বছর পূর্তি উদযাপন বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ থাকা সত্ত্বেও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় শান্তিচুক্তির পূর্ণ বাস্তবায়নে অঙ্গিকারাবদ্ধ ——পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি

পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের পার্বত্য চট্টগ্রাম শাসনবিধি আইন বহাল রাখার ষড়যন্ত্র প্রতিরোধে আশু করণীয় শীর্ষক-গোলটেবিল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত : উপনিবেশিক ও অসাংবিধানিক ১৯০০ সালের পার্বত্য চট্টগ্রাম শাসনবিধি আইন বহাল রাখার ষড়যন্ত্র প্রতিরোধ করতে হবে–সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীর প্রতীক এমপি