বান্দরবানে আদিবাসী দিবস উদযাপনের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা : দেশ বিভক্তির উদ্দেশ্যে আদিবাসী শব্দের ব্যবহার

॥ রাহুল বড়–য়া ছোটন, বান্দরবান ॥ “সর্বক্ষেত্রে পার্বত্য বাঙ্গালিদের সাংবিধানিক অধিকার দিতে হবে” এই শ্লোগানে বান্দরবানে আদিবাসী দিবস পালনের প্রতিবাদ এবং আদিবাসী দিবস বর্জনে জন্য সকলকে অনুরোধ জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্টিত হয়েছে।
বৃহষ্পতিবার (৮ আগষ্ট) সকালে বান্দরবান সচেতন পার্বত্যবাসী ব্যানারে স্থানীয় একটি রেস্টুরেন্টে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্টিত হয়।
এসময় সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, বাংলাদেশ সংবিধান পরিপন্থি, দেশ বিভক্তির উদ্দেশ্যে পরিকল্পিত ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে আদিবাসী শব্দের ব্যবহার ও অসাংবিধানিকভাবে ৯ আগষ্ট আদিবাসী দিবস পালনের প্রস্তুতি নিচ্ছে একটি গোষ্টি।
বক্তারা এসময় আরো অভিযোগ করে বলেন, সম্প্রতি পাহাড়ে বসবাসরত কিছু নোংরা মনমানসিকতার উপজাতি জনগোষ্টি নিজেদেরকে আদিবাসী দাবী করে তারা নিজেদের কলুশিত করার পাশাপাশি ক্ষুদ্র নৃগোষ্টি সম্প্রদায়কে প্রশ্নবিদ্ধ করছে যা সচেতন ক্ষুদ্র নৃগোষ্টির কাছে ও বোধগম্য নয় এবং যা গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে।
এসময় সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা অবিলম্বে সংবিধান পরিপন্থি আদিবাসী দিবস পালন বন্ধে সরকারকে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানান।
সংবাদ সম্মেলনে এসময় উপস্থিত থেকে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বান্দরবান সচেতন পার্বত্যবাসীর আহবায়ক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান আখন্দ। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন যুগ্ন আহবায়ক মো: আব্দুল্লাহ আল মামুন রাসেল, সদস্য সচিব মো: শফিকুর রহমান, সহ:সদস্য সচিব মো: নেচারুদ্দিন, মোঃ সাকিব চৌধুরীসহ বান্দরবানে কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সংবাদকর্মী ও সচেতন পার্বত্যবাসীর সদস্যরা।

পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের মৎস্য সম্পদ উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় জেলা পর্যায়ে স্টেকহোল্ডার ক্যাম্পেইন বিষয়ক কর্মশালা প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি ঘরে ঘরে কর্মসংস্থান সৃষ্টির পরিকল্পনা বাস্তবায়নে আমাদের আরো গ্রহনযোগ্য প্রকল্প হাতে নিতে হবে —–দীপংকর তালুকদার এমপি