পানি স্বল্পতায় কাপ্তাই বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ২টি জেনারেটরে উৎপাদন বন্ধ, বিদ্যুৎ উৎপাদন আরো কমে যাওয়ার আশঙ্কা

॥ কাজী মোশাররফ হোসেন, কাপ্তাই ॥ চরম পানি সঙ্কটে পড়ছে কাপ্তাইয়ে অবস্থিত কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্র। প্রতিদিন কাপ্তাই লেক থেকে পানি কমছে। আর পানি কমার সাথে সাথে বিদ্যুৎ উৎপাদনের পরিমানও কমে যাচ্ছে। কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কন্ট্রোল রুম সুত্রে জানা গেছে, কাপ্তাই লেকে পানি রুলকার্ভের (পানির পরিমাপ) চেয়ে বর্তমানে ২ ফুট মীন সী লেভেলেরও (এমএসএল) কম রয়েছে। এই অবস্থায়ও প্রতিনিয়ত বিদ্যুৎ উৎপন্ন করা হচ্ছে। এর ফলে প্রতিদিন কাপ্তাই লেকের পানি কমে যাচ্ছে। বৃষ্টির ভরা মউসুমে কাপ্তাই লেকে পানির এরকম সঙ্কট সচরাচর দেখা যায়নি বলে স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে।
এ ব্যাপারে কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী এ টি এম আব্দুজ্জাহের কাপ্তাই লেকে পানি কম থাকার কথা স্বীকার করে বলেন, বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকায় বৃষ্টিপাত হচ্ছেনা। বৃষ্টি না হওয়ায় জলাধারে পানি জমছেনা। বরং জলাধারে যে পানি জমা আছে তা খরচ করে বর্তমানে বিদ্যুৎ উৎপন্ন করা হচ্ছে।
কাপ্তাই লেকের পানি আশঙ্কাজনক হারে কমে যাচ্ছে স্বীকার করে প্রকৌশলী এ টিএম আব্দুজ্জাহের আরো বলেন, কাপ্তাই বিদ্যুৎ কেন্দ্রে মোট ৫টি জেনারেটর রয়েছে। এই ৫টি জেনারেটর থেকে প্রতিদিন ২৪০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা সম্ভব। কিন্তু লেকে পানি কম থাকায় এতদিন ৪ নম্বর জেনারেটরটি বন্ধ রেখে অন্যান্য জেনারেটর থেকে সীমীত পরিমানে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হচ্ছিল। কিন্তু পরিস্থিতি আরো খারাপ হবার কারণে শনিবার (২২ আগষ্ট) রাত থেকে কেন্দ্রের ৩ নম্বর জেনারেটরটিও বন্ধ রাখা হয়। বর্তমানে ৫টির মধ্যে ৩টি জেনারেটর থেকে ১১৮ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হচ্ছে। উৎপাদিত বিদ্যুতের পুরোটাই জাতীয় গ্রীডে সঞ্চালন করা হচ্ছে।
কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের একটি সুত্র জানায়, বাংলাদেশে একমাত্র কাপ্তাই থেকে অত্যন্ত কম খরচে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হয়ে থাকে। পানির সাহায্যে বিদ্যুৎ উৎপাদন করায় কাপ্তাইয়ে প্রতি ইউনিট বিদ্যুৎ উৎপাদন খরচ পড়ে মাত্র ২৫ পয়সা। কিন্তু বর্তমানে কাপ্তাই লেকে পরিমাণমত পানি না থাকায় বিদ্যুৎ উৎপাদন অর্ধেকে নেমে এসেছে। বৃষ্টি না হলে ভবিষ্যতে উৎপাদন আরো কমিয়ে আনতে হতে পারে বলেও সুত্র আশঙ্কা করছে।

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ২৬ বছর পূর্তি উদযাপন বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ থাকা সত্ত্বেও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় শান্তিচুক্তির পূর্ণ বাস্তবায়নে অঙ্গিকারাবদ্ধ ——পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি

পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের পার্বত্য চট্টগ্রাম শাসনবিধি আইন বহাল রাখার ষড়যন্ত্র প্রতিরোধে আশু করণীয় শীর্ষক-গোলটেবিল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত : উপনিবেশিক ও অসাংবিধানিক ১৯০০ সালের পার্বত্য চট্টগ্রাম শাসনবিধি আইন বহাল রাখার ষড়যন্ত্র প্রতিরোধ করতে হবে–সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীর প্রতীক এমপি