বাঘাইছড়িতে প্রতারণার মাধ্যমে বৃদ্ধার জমি ও নগদ ৮৫ হাজার টাকা কেড়ে নেয়ার অভিযোগ

॥ বাঘাইছড়ি প্রতিনিধি ॥ রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলায় প্রতারনার মাধ্যমে ৮৫ বছর বয়সী এক বৃদ্ধার জমি কেড়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে ডাক বিভাগের নগদ শাখার বাঘাইছড়ি উদ্যোগতা মোঃ জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে। সে উপজেলার কাচালং বাজার এলাকার বাসিন্দা দফাদার মোঃ জাফর ইকবালের ছেলে। ২২ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার দুপুরে বাঘাইছড়ি প্রেস ক্লাবের অস্থ্যায়ী কার্যালয়ে হাজির হয়ে, জাহাঙ্গীর আলম ও তার বাবা দফাদার জাফর ইকবালের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেন কাচালং বাজার এলাকার বৃদ্ধ আব্দুল জব্বার(৮৫) ও তার পরিবার। এসময় স্থানীয় সাংবাদিক সমাজের সহায়তা চেয়ে প্রতারক জাহাঙ্গীর আলম ও তার বাবা জাফর ইকবালের বিচার প্রর্থণা করেন। বৃদ্ধা অভিযোগ করেন বাঘাইছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের পাশে প্রায় দেড় একর জমি রয়েছে তার।
বৃদ্ধা অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তার স্ত্রী, জমি বিক্রি করার জন্য উদ্যোগতা প্রতিবেশী জাহাঙ্গীরের সরনাপন্ন হন এসময় সে গ্রহক খুজে দেয়ার নাম করে বৃদ্ধার জমির দলিল ও প্রয়োজনীয় কাগজ নিজের কাছে রেখে দেয় কিছুদিন যাওয়ার পর জমির কাগজে ভুল রয়েছে মর্ম বৃদ্ধার নিকট ৩০০০- ৫০০০ টাকা দাবী করে পরে পর্যায় ক্রমে নগদ মোট ৮৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় এবং কাগজ সংশোধন করার নামে বৃদ্ধার কাছ থেকে দলীলে সাক্ষর নিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে জমি নিজের নামে করে নেয়। সারা জীবনের তিলে তিলে জমানো ৮৫ হাজার টাকা উপজেলার পুষ্ট অফিসে সঞ্চয় হিসেবে আমানত রাখার খবর জানতো নগদ উদ্যোগতা জাহাঙ্গীর আলম তাই বৃদ্ধার সরলতার সুযোগ নিয়ে তার জীবনের শেষ সম্বল টুকু হাতিয়ে নেয় প্রতারক জাহাঙ্গীর আলম, স্থানীয় থানা পুলিশ ও .প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও কোন ন্যায় বিচার না পেয়ে এখন সাংবাদিক সমাজের দারস্থ্য হয়েছেন বলে দাবী করেন বৃদ্ধা আব্দুল জব্বার।
অভিযোগের বিষয়ে জানতে জাহাঙ্গীর আলমের বাবা জাফর ইকবালের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি দাবী করেন ডিসি অফিসের এসি ল্যান্ড ও মেজিষ্ট্রেটের মাধ্যমে জমি রেজিষ্ট্রেশন হয়েছে সেখানে প্রতারনার সুযোগ নেই। জমির দাম বেড়ে যাওয়ায় একটি পক্ষ ষড়যন্ত্র করছে। অভিযুক্ত জাহাঙ্গীরের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি দাম্ভিকতার সাথে বলেন আমার কাছে জমির কাগজ পত্র রয়েছে এগুলো যাচাই করে দেখেন।
এদিকে অভিযুক্ত জাহাঙ্গীর আলমের বিষয়ে স্থানীয় অনেক জনপ্রতিনিধি বলেন তার কাজই হচ্ছে উদ্যোগতার আড়ালে মানুষকে প্রতারিত করা অতিতে বহু মানুষকে ভুয়া জন্মসনদ দিয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়া সহ বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করে আসছে এবং সে দীর্ঘ বৎসর উপজেলা আনসার ভিডিপি কার্যালয় দখল করে ব্যবসা বানিজ্য চালিয়ে আসিতেছে। এ বিষয়ে আগামী বুধবার সকাল ১০ ঘটিকায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে দুই পক্ষের উপস্থিতিতে শুনানির কথা রয়েছে।

পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের মৎস্য সম্পদ উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় জেলা পর্যায়ে স্টেকহোল্ডার ক্যাম্পেইন বিষয়ক কর্মশালা প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি ঘরে ঘরে কর্মসংস্থান সৃষ্টির পরিকল্পনা বাস্তবায়নে আমাদের আরো গ্রহনযোগ্য প্রকল্প হাতে নিতে হবে —–দীপংকর তালুকদার এমপি