রাঙ্গামাটিতে উন্মেষ যুব সেচ্ছাসেবী ও সামাজিক সংগঠনের ১ যুগ পূর্তি উদযাপন সেচ্ছাসেবী সংগঠন উন্মেষ হামাগুড়ি দিয়ে শুরু করেছে, বর্তমানে হাঁটছে বা উড়ছে —–দীপংকর তালুদকার এমপি

॥ মিকেল চাকমা, রাঙ্গামাটি ॥ তোমাকে উড়তে হবে, যদি উড়তে না পার দৌঁড়ানোর চেষ্টা কর, যদি দৌঁড়াতে না পার হাঁটার চেষ্টা কর, যদি হাঁটতে না পার হামাগুড়ি দিতে চেষ্টা কর। তেমনিভাবে সেচ্ছাসেবী সংগঠন উন্মেষ হামাগুড়ি দিয়ে শুরু করেছে, বর্তমানে হাঁটছে বা উড়ছে। বলে মন্তব্য করেছেন রাঙ্গামাটি সংসদ সদস্য ও পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার এমপি।
শুক্রবার (১ মার্চ) সকাল ১০টায় যুব সেচ্ছাসেবী ও সামাজিক সংগঠন উন্মেষ এর ১ যুগ পূর্তি উপলক্ষ্যে থেকে মোনঘর আবাসিক উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে উন্মেষ এর বর্তমান সভাপতি প্রিন্সি চাকমার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য অ্যাডভোকেট চুঞ্চু চাকমা, রাঙ্গামাটি চীপ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট মোঃ রফিকুল ইসলাম, মানবাধিকার কমিশনের সাবেক সদস্য নিরুপা দেওয়ান, মানবাধিকার কমিশনের সাবেক সদস্য ও রাঙ্গামাটি সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ বাঞ্চিতা চাকমা, অবসরপ্রাপ্ত কর্ণেল কৃত্তি রঞ্জন চাকমা, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ মঞ্জুলিকা খীসা, রাজ পরিবারের চন্দ্রা কালিন্দী কুমারী, নারী নেত্রী টুকু তালুকদার, উন্মেষ এর উপদেষ্টা স্নেহাশীষ চাকমা আশিষ, উন্মেষ এর প্রতিষ্টাতা সভাপতি দীপেন চাকমা।
এছাড়াও সেচ্ছাসেবী ও সামাজিক সংগঠন উদ্যম ফাউন্ডেশন, সিএইচটি হিল ব্লাড ডোনার গ্রুপ, রিদিসুদুম জয়েন এসোসিয়েশন, জীবন, বাঁধন এর প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
কর্মসূচির মধ্যে শুরুতে জাতীয় সংগীত ও উদ্বোধনী সংগীত পরিবেশন করা হয়। এরপর প্রধান অতিথি দীপংকর তালুকদার এমপি বেলুন উড়িয়ে অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন এবং অতিথিদের মঞ্চে আসনগ্রহণ সহকারে উত্তরীয় পড়িয়ে দেয়া হয়।
প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে দীপংকর তালুকদার এমপি আরো বলেন, উন্মেষ এর অনেক অসুস্থ রোগীকে আমার সুপারিশে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা চিকিৎসা সহায়তা প্রদান করেন। তিনি আরও বলেন, এক সময় অসুস্থতার কারনে আমার রক্ত লেগেছিল। আমার অনেক সহকর্মী রক্ত দান করার জন্য ইচ্ছা প্রকাশ করেন। রক্তের একটি রং লাল। চাকমা, মার্মা, ত্রিপুরা, তঞ্চঙ্গ্যা, বম, পাংখোয়া, বাঙালি সবার রক্তের রং লাল। ভেদাভেদের কিছু নেই। জাতীয় পর্যায়ে দেশ ও দশের উন্নয়নের জন্য আমরা কাজ করে যাবো। দেশ ও জাতীয় পর্যায়ে আমাদের পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে মনিকা চাকমা, ঋতুপর্ণা চাকমা, দীপু চাকমা, সুরকৃঞ্চ চাকমা স্বর্ন জিতে এনেছে। এ অর্জন শুধু পার্বত্য চট্টগ্রামবাসীদের নয় পুরো দেশেরই এ অর্জন ও সুনাম বয়ে এনেছে। তিনি উন্মেষ এর জন্য এককালীন ২ লক্ষ টাকা আর্থিক অনুদান ঘোষণা করেন। পাশাপাশি ল্যাপটপ কম্পিউটার, প্রিন্টার দেয়ার ঘোষণা দেন।
উন্মেষ এর সাধারণ সম্পাদক করুন চাকমা বলেন, উন্মেষ সংগঠনটি ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১২ সালে প্রতিষ্ঠা করা হয়। প্রতিষ্টালগ্ন থেকে সংগঠনটি বিভিন্ন সেচ্ছাসেবী ও সামাজিক সেবা দিয়ে আসছে বিশেষ করে রক্তদান, ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পেইন, ত্রান সংগ্রহ ও বিতরণ, অসহায় রোগীদের চিকিৎসা এবং গরীব মেধাবী শিক্ষার্থীদের সহায়তা প্রদানসহ বিভিন্ন সেচ্ছাসেবী ও সামাজিক কাজ করে যাচ্ছে। উন্মেষের সদস্য সংখ্যা ৪ শতের অধিক বলে তিনি জানান।
উন্মেষ এর সেবা গ্রহীতা মিতা চাকমা বলেন, উন্মেষ একটি সেচ্ছাসেবী সংগঠন অসহায়দের পাশে থাকে। হাসপাতালে আমার অসুস্থ মায়ের জন্য রক্ত দানের মাধ্যমে জীবন বাঁচিয়েছে উন্মেষ। আমার মা এখনো বেঁচে আছে। এক কথায় বলা চলে উন্মেষ হচ্ছে অসহায়ের সহায় দিয়ে থাকে।

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ২৬ বছর পূর্তি উদযাপন বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ থাকা সত্ত্বেও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় শান্তিচুক্তির পূর্ণ বাস্তবায়নে অঙ্গিকারাবদ্ধ ——পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি

পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের পার্বত্য চট্টগ্রাম শাসনবিধি আইন বহাল রাখার ষড়যন্ত্র প্রতিরোধে আশু করণীয় শীর্ষক-গোলটেবিল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত : উপনিবেশিক ও অসাংবিধানিক ১৯০০ সালের পার্বত্য চট্টগ্রাম শাসনবিধি আইন বহাল রাখার ষড়যন্ত্র প্রতিরোধ করতে হবে–সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীর প্রতীক এমপি